ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন দেখছেন অ্যাতলেতিকোর কোচ

297

ফাইনাল স্বপ্ন একরকম শেষই হয়ে গেছে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদের। সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে নগরপ্রতিপক্ষ রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে ৩-০ গোলে হেরে গেছে তারা চ্যাম্পিয়নস লিগ সেমিফাইনালের প্রথম লেগে। ফিরতি লেগ ঘরের মাঠে হলেও হারের ব্যবধান টপকে অ্যাতলেতিকোর ফাইনাল মঞ্চে পৌঁছানোর পক্ষে কঠিন বাজি ধরার লোক খুব বেশি থাকার কথা নয়। ফুটবল বিশ্লেষকরাও বিদায়ের খাতায় ফেলে দিচ্ছেন মাদ্রিদের ‘ছোটদের’! অ্যাতলেতিকোর কোচ ডিয়েগো সিমিওনে কিন্তু স্বপ্ন দেখছেন এখনও। দ্বিতীয় লেগে ঘুরে দাঁড়ানোর আশ্বাস দিয়েছেন তিনি খেলোয়াড় ও সমর্থকদের। ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর হ্যাটট্রিকে উড়ে যাওয়া অ্যাতলেতিকো বুধবার রাতে নামবে ঘরের মাঠে। ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতায় ওটাই হবে ভিসেন্তে কালদেরনে শেষ ম্যাচ। কঠিন পরিস্থিতির সামনে দাঁড়ানো অ্যাতলেতিকো শেষটা রাঙিয়ে নিতে চাইলেও প্রথম লেগেই সব কিছু শেষ হয়ে গেছে একরকম। কার্ডিফের ফাইনাল তাদের কাছে এখন অনেক দূরের পথ। যতই ঘরের মাঠ হোক ৩-০ গোলের ব্যবধান টপকে রিয়ালের মতো দলকে হারাতে গেলে যে রূপকথা লিখতে হবে তাদের! কোচ সিমিওনের মনে কিন্তু আছে সেই বিশ্বাস, ‘আমার তো মনে হয় না, এটা অসম্ভব। আমাদের হাতে এখনও ফিরতি লেগের খেলা আছে (ঘরের মাঠে)। আমি আমার খেলোয়াড় ও ভক্তদের বলেছি-হ্যাঁ, আমরা পারব। সান্তিয়াগো বার্নাব্যুর প্রথমার্ধে ১-০ গোলে পিছিয়ে ছিল অ্যাতলেতিকো। রিয়াল গোল করলেও প্রথম ৪৫ মিনিটে দলের পারফরম্যান্সে ভীষণ খুশি ছিলেন সিমিওনে। তবে দ্বিতীয়ার্ধে এলোমেলো হয়ে যায় রোনালদো আরও দুইবার বল জালে জড়ালে। আর্জেন্টাইন কোচ তাই আফসোস করে বললেন, ‘প্রথমার্ধ ছিল সমানে সমান। আমরা এগিয়ে যেতে পারতাম, যদি কেইলর নাভাসের সঙ্গে ওয়ান টু ওয়ান মুহূর্তটা কাজে লাগাতে পারতো গামেইরো। প্রথমার্ধে যেভাবে খেলোয়াড়রা খেলেছে, তাতে আমি সন্তুষ্ট, যদিও দ্বিতীয়ার্ধে তারা (রিয়াল) আক্রমণের জায়গা পেয়ে যায়। মার্কা