ওয়ানডে বিশ্বকাপে খেলতে ভারতে যাবে না পাকিস্তান

51

অক্টোবরে ভারতে অনুষ্ঠিত হবে ওয়ানডে বিশ্বকাপ। আর এই বিশ্বকাপে অংশ নিতে পাকিস্তান ক্রিকেট দলকে অনাপত্তিপত্র দিবে না দেশটির সরকার। রোববার জিও নিউজ এমনই একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে, পাকিস্তান সরকার মনে করছে তাদের ক্রিকেট দল ভারতে খেলতে গেলে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নাও পেতে পারে। সে কারণে তারা অনাপত্তিপত্র দিতে রাজি হয়নি। তাতে করে পাকিস্তানের ওয়ানডে বিশ্বকাপে অংশ নেওয়ার বিষয়টি পেন্ডুলামে ঝুলে গেছে। পাকিস্তান সরকার ক্রিকেট দলকে ভারতে নিরাপদ মনে করছে না কেন? দেশটির সরকার মনে করছে ভারতে বর্তমানে মুসলমানদের বিরুদ্ধে যেভাবে নৃশংসতা চলছে এবং উগ্রবাদী হিন্দুরা যেভাবে মুসলিম জনগোষ্ঠীকে কোণঠাঁসা করছে তাতে করে পাকিস্তান দলের জন্য এই সফর ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে। পাশাপাশি দেশ দুটির মধ্যে লম্বা সময় ধরে চলমান রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব তো রয়েছেই। নাম প্রকাশ না করে এ বিষয়ে পাকিস্তান সরকারের এক কর্মকর্তা বলেছেন, ‘ভারতে বর্তমানে মুসলমানরা নিদারুণ নৃশংসতার শিকার হচ্ছে। বিশেষ করে উগ্রবাদী হিন্দুরা মুসলিম কমিউনিটির ওপর নানারকম অত্যাচার ও নির্যাতন চালাচ্ছে। মুসলমানদের বিরুদ্ধে ঘৃণা ছড়াতে হেন কোন কাজ নেই যা তারা করছে না। এমন সময়ে আমরা আমাদের ক্রিকেট দলকে সেখানে বিশ্বকাপ খেলতে যেতে দিতে পারি না। পাশাপাশি আমরা পাকিস্তান দলের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত। ভারতের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েও আমাদের শঙ্কা রয়েছে। সুতরাং আমরা আমাদের ক্রিকেট দলকে সেখানে খেলতে যেতে দিতে পারি না।’ তবে ক্রিকেট বোদ্ধারা মনে করছেন এশিয়া কাপ পাকিস্তানে আয়োজনের বিষয়ে ভারত যেমন ঢিল মেরেছিল। তার জবাবে পাকিস্তান পাটকেল ছুড়লো। ২০২৩ এশিয়া কাপের আয়োজক পাকিস্তান। তারা খুব করে চাচ্ছে ঘরের মাঠে এশিয়া কাপ আয়োজন করতে। কিন্তু ভারত সেখানে যেতে চাচ্ছে না নিরাপত্তার কারণ দেখিয়ে। এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের সবশেষ সভার আলোচনা অনুযায়ী পাকিস্তানে নয়, নিরপেক্ষ ভেন্যুতে হতে যাচ্ছে এশিয়া কাপ।

অন্যদিকে পাকিস্তান সেপ্টেম্বরে নিজ দেশেই এটা আয়োজন করতে চাচ্ছে। ভারতের ওপর চাপ তৈরি করতেই হয়তো পাকিস্তান সরকার এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে। অর্থাৎ পাকিস্তান যদি নিজ দেশে এশিয়া কাপ আয়োজন করতে না পারে, ভারত যদি পাকিস্তানে খেলতে না আসে। তাহলে পাকিস্তানও ভারতে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ওয়ানডে বিশ্বকাপে অংশ নিতে যাবে না।