আ.আ.ম. মেসবাহুল হক বাচ্চু, ডাক্তারের ম্যুরাল উদ্বোধন

15

চাঁপাইনবাবগঞ্জে মহান মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ডা. আ.আ.ম. মেসবাহুল হক (বাচ্চু ডাক্তার) এর স্মৃতিকে ধরে রাখতে তাঁর একটি ম্যুরাল নির্মাণ করা হয়েছে। তাঁরই সুযোগ্য সন্তান জাতীয় সংসদে ৩৩৮, চাঁপাইনবাবগঞ্জ-এর সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য ফেরদৌসী ইসলাম জেসির উদ্যোগে এই ম্যুরালটি নির্মাণ করা হয়। ম্যুরালটি শহরের রেহাইচরে ডা. আ.আ.ম. মেসবাহুল হক স্টেডিয়ামে নির্মাণ করা হয়েছে। আজ এর উদ্বোধন করেন সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্য ফেরদৌসী ইসলাম জেসি। এসময় উপস্থিত ছিলেন- সাবেক সংসদ সদস্য মু. জিয়াউর রহমান, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (উপসচিব) এনামুল হক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি মঞ্জুরুল হাফিজ, পুলিশ সুপার এএইচএম আবদুর রকিব, জেলা জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ইয়াসমিন সুলতানা রুমাসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

উল্লেখ্য, ডা. আ.আ.ম. মেসবাহুল হক বাচ্চু রাজশাহী বিভাগের চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামে ১৯৩০ সালের ৩ মার্চ এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। পেশায় তিনি একজন চিকিৎসক ছিলেন। তাঁর স্ত্রীর নাম মাসুদা হক। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি ৩ ছেলে ও ২ মেয়ের জনক। তিনি চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার মসজিদপাড়ায় বসবাস করতেন। ২০০৯ সালের ১৬ জানুয়ারি না ফেরার দেশে চলে যান চাঁপাইনবাবগঞ্জের তৎকালীন অভিভাবক ডা. আ.আ.ম. মসবাহুল হক বাচ্চু। বাচ্চু ডাক্তার ১৯৪৭ সালে পশ্চিমবঙ্গ মালদহ জেলা স্কুল থেকে ম্যাট্টিকুলেশন পাস করেন। তিনি ১৯৪৯ সালে রাজশাহী কলেজ থেকে আইএসসি পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। তৎকালীন রাজশাহী মেডিকেল স্কুল (বর্তমানে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ) থেকে ১৯৫২ সালে এলএমএফ ডিগ্রি অর্জন করেন। ডা. মেসবাহুল হক বাচ্চু ১৯৭০ সালে প্রাদেশিক পরিষদের সদস্য ছিলেন। তিনি স্বাধীনতা পরবর্তী (১৯৭১-৭২) গণপরিষদ সদস্য হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭৩ সালে জাতীয় নির্বাচনে তিনি জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৭৫ সালে তাঁকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গভর্নর নিযুক্ত করেন। ছাত্রাবস্থায় মেসবাহুল হক তৎকালীন রাজশাহী মেডিকেল স্কুলের ছাত্র থাকাকালীন ১৯৫২ সালের মহান ভাষা আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেন। ভাষা আন্দোলনের সাথে জড়িত থাকার কথিত অপরাধে ১৯৫৪ সালে রাজশাহীতে ৪০ জন ছাত্রনেতার সাথে সেই সময়কার দাপুটে ছাত্রনেতা মেসবাহুল হক বাচ্চুও কারাবরণ করেন। ২০২০ সালে তাঁকে একুশে পদকে ভূষিত করা হয়।

মেসবাহুল হক বাচ্চু চাঁপাইনবাবগঞ্জের মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্ব দান করেন। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধকে সঠিকভাবে পরিচালনার জন্য চাঁপাইনবাবগঞ্জে ৫ সদস্য বিশিষ্ট একটি স্টিয়ারিং কমিটি গঠন করা হয়। যার অন্যতম সদস্য ছিলেন মেসবাহুল হক। মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনার জন্য ১৯৭১ সালে মালদহে স্বাধীন বাংলাদেশ সরকার প্রতিষ্ঠিত হলে সেখানকার জোনাল অফিসের সহকারী চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন মেসবাহুল হক। তিনি সেখানে গৌড় বাগান প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের ইনচার্জ ছিলেন।