জাতীয় দেশে এক দিনে রেকর্ড ৭০৮৭ জন শনাক্ত

12

দেশে প্রথম করোনা শনাক্তের দিন থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় এ যাবৎকালে সর্বোচ্চ করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। এ সময়ে নতুন করে শনাক্ত হয়েছেন ৭ হাজার ৮৭ জন। এ নিয়ে দেশে মোট করোনা শনাক্ত হলেন ৬ লাখ ৩৭ হাজার ৩৬৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত্যু হয়েছে আরো ৫৩ জনের। এ নিয়ে করোনায় দেশে এখন পর্যন্ত মারা গেলেন ৯ হাজার ২৬৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৭০৭ জন। তাদের নিয়ে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৫ লাখ ৫২ হাজার ৪৮২ জন।
গত বছরের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা শনাক্ত হয়। এর এক বছর পর গত সপ্তাহে প্রথমবারের মতো একদিনে ৫ হাজারের বেশি সংখ্যক রোগী শনাক্ত হন। এর তিন দিনের মাথায় দৈনিক শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৬ হাজার ছাড়ায় গত বৃহস্পতিবার। মাঝে শনিবার একদিনে শনাক্ত ৬ হাজারের নিচে ছিল। রবিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের করোনাবিষয়ক নিয়মিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়।
এতে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় রোগী শনাক্তের হার ২৩ দশমিক শূন্য ৭ শতাংশ এবং এখন পর্যন্ত শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৩২ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৬ দশমিক ৬৮ শতাংশ এবং শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যু হার ১ দশমিক ৪৫ শতাংশ।
গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ৩১ হাজার ৪৯৩টি এবং নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে ৩০ হাজার ৭২৪টি। দেশে এখন পর্যন্ত মোট পরীক্ষা করা হয়েছে ৪৭ লাখ ৮৩ হাজার ৩৮৫টি।
গত ২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়া ৫৩ জনের মধ্যে পুরুষ ৪৫ জন এবং নারী ৮ জন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত পুরুষ মারা গেছেন ৬ হাজার ৯৭০ জন এবং নারী মারা গেছেন ২ হাজার ২৯৬ জন। বয়স বিবেচনায় মৃত্যুবরণকারীদের মধ্যে ষাটোর্ধ্ব রয়েছেন ৩৪ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে আছেন ১১ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে আছেন ৫ জন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে আছেন ২ জন এবং ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে আছে ১ জন। মৃতদের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ৩৭ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৯ জন, রাজশাহী বিভাগে ১ জন এবং রংপুর ও ময়মনসিংহ বিভাগে ৩ জন করে রয়েছেন। তাদের মধ্যে হাসপাতালে মারা গেছেন ৫২ জন এবং বাড়িতে মারা গেছেন একজন।
গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে কোয়ারেন্টাইনে যুক্ত হয়েছেন ১ হাজার ৭০৫ জন, ছাড়া পেয়েছেন ৯৮২ জন। এখন পর্যন্ত কোয়ারেন্টাইনে যুক্ত হয়েছেন ৬ লাখ ৫৬ হাজার ৬২০ জন, ছাড়া পেয়েছেন ৬ লাখ ১৬ হাজার ৩৪৮ জন। বর্তমানে কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৪০ হাজার ২৭২ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আইসোলেশনে যুক্ত হয়েছেন ৩৮১ জন, ছাড়া পেয়েছেন ২৪৯ জন। এখন পর্যন্ত আইসোলেশনে যুক্ত হয়েছেন ১ লাখ ৬ হাজার ৬৩৬ জন, ছাড়া পেয়েছেন ৯৩ হাজার ৭৬৬ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১২ হাজার ৮৭০ জন।