মারা গেছেন উন্নাওয়ের সেই তরুণী

33

ধর্ষণের মামলায় আদালতে সাক্ষ‌্য দিতে যাওয়ার পথে আগুন সন্ত্রাসের শিকার ২৩ বছরের তরুণী মারা গেছে। শুক্রবার স্থানীয় সময় রাত ১১টা ৪০ মিনেটে দিল্লির  সফদরজং হাসপাতালে মারা যান তিনি। হাসপাতালের বার্ন ইউনিটের বিভাগীয় প্রধান শলভ কুমার বলেন, ‘মেয়েটি ১১টা ১০ মিনিট নাগাদ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়। তাকে বাঁচানোর নানা চেষ্টা করা হলেও সে চিকিৎসায় সাড়া দেয়নি। ১১টা ৪০ মিনিটে তার মৃত্যু হয়’। গত মার্চে ওই তরুণী পুলিশকে অভিযোগে জানিয়েছিলেন, সাবেক প্রেমিকসহ দুজন তাকে ধর্ষণ করেছে। এর পরপ্রেক্ষিতে এক অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। বৃহস্পতিবার ওই মামলায় রায়বেরিলির আদালতে সাক্ষ‌্য দিতে যাচ্ছিলেন ওই তরুণী। পথে তাকে রেল স্টেশনের কাছে ঘিরে ধরে প্রথমে বেত দিয়ে পেটায় পাঁচ জন। এদের মধ্যে দু’জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ করেছিলেন তিনি। তার পর তার গলায় বসানো হয় ছুরির কোপ। তিনি সংজ্ঞাহীন অবস্থায় রাস্তায় পড়ে গেলে শরীরে পেট্রল ঢেলে দিয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। শুক্রবার সকালে ৯০ শতাংশ দগ্ধ অবস্থায় হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে তার ওপর হামলার বিবরণ দেন ওই তরুণী।

হামলাকারীদের মধ্যেধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত শিবম ত্রিবেদী মাত্র পাঁচ দিন আগে আদালত থেকে জামিনে ছাড়া পেয়েছিল। শুক্রবার ওই তরুণীর জবানবন্দীর পর পাঁচ হামলাকারীকেই গ্রেপ্তার করেছে  পুলিশ।