শিবগঞ্জে পাগলা নদীতে নিখোঁজ স্কুল ছাত্রের মরদেহ দিন পর উদ্ধার

9

শিবগঞ্জ উপজেলায় পদ্মার শাখা পাগলা নদীতে ডুবে নিখোঁজ দেলোয়ার হোসেন নামে এক শিশুর মরদেহ ২১ ঘন্টা পর উদ্ধর করেছে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল ও স্থানীয়রা। গতকাল দুপুরে নিখোঁজের পর আজ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তার মরদেহ নদী থেকে উদ্ধার হয়। দেলোয়ার সত্রাজিতপুর ইউনিয়নের চকঘোড়াপাখিয়া গ্রামের আতাউর রহমানের ছেলে ও চকঘোড়াপাখিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র ছিল। সংশ্লিষ্ট ইউপি ৬নং ওয়ার্ড সদস্য মানিক চাঁদ ও শিবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন অফিসার সিরাজ উদ্দিন জানান, রোববার বেলা দেড়টার দিকে ছোট ভাইকে সাথে করে বাড়ির অদুরে পাগলা নদীতে গোসল করতে নেমে শিশুটি নিখোঁজ হয়।
সে পানিতে ডুবে যাবার পর উপরে ঘাটে বসা তার ছোট ভাই বাড়িতে খবর দেয়। এরপর পরিবারের সদস্য ও স্থানীয়রা নদীতে তাকে খুঁজতে শুরু করে। কিন্তু খোঁজ না পেয়ে বিকেলে তারা শিবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়।
বিকেল ৫টার দিকে খবর পেয়ে শিবগঞ্জ ফায়ার সার্ভিসের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছে রাজশাহী থেকে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরী দল ডাকে। রাত সাড়ে ৭টার দিকে ৩ জন ডুবুরী রাজশাহী থেকে ঘটনাস্থলে পৌছে জেনারেটর দিয়ে আলোর ব্যবস্থা করে নদীতে শিশুটির খোঁজ শুরু করে। রাত ১০টা পর্যন্ত খোঁজার পর ডুবুরী দল গতকাল অভিযান স্থগিত করে। পরে আজ সকালে ডুবুরী দল নদীতে আরেক দফা খোঁজ শুরু করে। এর এক পর্যায়ে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে স্থানীয়দের সহায়তায় ডুরে যাবার প্রায় ২শ’ গজ উজান থেকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার হয়। শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামসুল আলম শাহ জানান,পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।