01713248557

ওমানে বিরল বন্দুক হামলা, নিহত ৪

ওমানে বিরল বন্দুক হামলা, নিহত ৪ মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ওমানের রাজধানী মাস্কাটে একটি মসজিদের কাছে বন্দুকধারীর গুলিতে চারজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আরও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। ওমানে এই ধরনের হামলার ঘটনা বেশ বিরল। দেশটির বন্দুক নিয়ন্ত্রণ আইন অত্যন্ত কঠোর। স্থানীয় পুলিশের বরাত দিয়ে মঙ্গলবার (১৬ জুলাই) এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাজধানী মাস্কাটের আল-ওয়াদি আল-কবির নামক এলাকায় একটি মসজিদের কাছে স্থানীয় সময় মঙ্গলবার ভোরে বন্দুক হামলার ঘটনা ঘটেছে। ওমানি পুলিশ বলেছে, এ ঘটনা মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে স্থিতিশীল দেশগুলোর একটিতে নিরাপত্তার একটি বিরল লঙ্ঘন। পুলিশ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, পরিস্থিতি মোকাবিলায় সব নিরাপত্তা ব্যবস্থা এবং পদ্ধতি গ্রহণ করা হয়েছে। এখনো হামলাকারীর পরিচয় এবং হামলার কারণ জানা যায়নি। প্রমাণ সংগ্রহ ও প্রাথমিক তদন্ত চলছে। এ ঘটনায় ওমানে মার্কিন দূতাবাস আমেরিকান নাগরিকদের হামলার এলাকা থেকে দূরে থাকার সতর্কতা জারি করেছে। আরব উপদ্বীপের পূর্ব প্রান্তে অবস্থিত দেশ ওমান। সুলতানি আমল থেকেই দেশটিতে সহিংসতা বিরল। তাই ঠিক কি কারণে এ হামলা তা বের করতে কাজ করছে দেশটির পুলিশ।

গাজায় শরণার্থী শিবিরের মসজিদে ইসরায়েলের হামলা, নিহত ২২

গাজায় শরণার্থী শিবিরের মসজিদে ইসরায়েলের হামলা, নিহত ২২ পশ্চিম গাজা নগরীর আল শাতি শরণার্থী শিবিরের একটি অস্থায়ী মসজিদে শনিবার (১৩ জুলাই) হামলা চালিয়েছে ইসরায়েলি বাহিনী। এতে অন্তত ২২ জন নিহত হয়েছে। খবর সিএনএনের। আল-আহলি হাসপাতালের জরুরি বিভাগের প্রধান আমজাদ আল-আহলি সিএনএনকে বলেছেন, শনিবার আল শাতি ক্যাম্পের অস্থায়ী মসজিদে ইসরায়েলি হামলায় ২০ জন নিহত হয়। এরপর গতকাল রোববার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আরও দুইজনের মৃত্যু হয়েছে।  গাজার সিভিল ডিফেন্সের মুখপাত্র মাহমুদ বাসাল সিএনএনকে বলেছেন, জোহরের নামাজের সময় বোমা হামলা চালানো হয়েছে। তিনি জানান, আহত সবার অবস্থা গুরুতর। বিভিন্ন ভিডিওতে দেখা যায়, নামাজের জন্য রাখা ‘মাদুরে’ লাশ পড়ে আছে। বহু হতাহতদের শরীর ছিন্নভিন্ন হয়েছে। জাতিসংঘের মানবাধিকার কার্যালয় শনিবার তাদের দৈনিক ব্রিফিংয়ে এই ঘটনার বিষয়ে মন্তব্য করে বলেছে, ‘ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনী (আইডিএফ) পশ্চিম গাজা শহরের আল শাতি শরণার্থী শিবিরের ভিতরে একটি অস্থায়ী মসজিদে হামলা চালিয়েছে বলে জানা গেছে। একাধিক প্রতিবেদন বলছে, জোহরের নামাজের কিছুক্ষণ পরেই আইডিএফ হামলা চালায়, তখনও অনেক মানুষ মসজিদের ভিতরে বা কাছাকাছি ছিল।’ এদিকে, গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় রোববার (১৪ জুলাই) এক প্রেস ব্রিফিংয়ে জানিয়েছে, শনিবার গাজার বিভিন্ন স্থানে ইসরায়েলের হামলায় ১৪১ জন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। এছাড়া আহত হয়েছে অন্তত ৪০০ জন। উল্লেখ্য, গত বছরের ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে হামলা চালায় ফিলিস্তিনের স্বাধীনতাকামী সংগঠন হামাস। ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষের দাবি, এই হামলায় প্রায় ১২০০ নিহত ও দুই শতাধিক ইসরায়েলিকে জিম্মি করে গাজায় নিয়ে গেছে হামাস যোদ্ধারা। এর জবাবে ওই দিনই গাজায় বিমান হামলা ও পরে স্থল অভিযান শুরু করে ইসরায়েলি সেনাবাহিনী। নয় মাস পেরিয়ে গেলেও এখনো এ হামলা অব্যাহত আছে। গাজার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য বলছে, গত বছরের ৭ অক্টোবর থেকে চলমান ইসরায়েলি হামলায় গাজায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৮ হাজার ৫৮৪ জনে। পাশাপাশি এ সময় আহত হয়েছে আরও ৮৮ হাজার ৮৮১ জন। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, অনেক মানুষ এখনো ধ্বংসস্তূপের নিচে এবং রাস্তায় আটকে আছে। হামলা অব্যাহত থাকায় উদ্ধারকারীরা তাদের কাছে পৌঁছতে পারছেন না।

নিরাপদ ঘোষিত এলাকাতেই ইসরায়েলের হামলা, নিহত অর্ধশতাধিক

নিরাপদ ঘোষিত এলাকাতেই ইসরায়েলের হামলা, নিহত অর্ধশতাধিক ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী যে এলাকাটিকে ফিলিস্তিনিদের জন্য নিরাপদ বলে ঘোষণা করেছিল সেখানেই বিমান হামলা চালিয়েছে তারা। এ ঘটনায় অর্ধশতাধিক নিহত এবং শতাধিক আহত হয়েছে। শনিবার (১২ জুলাই) পশ্চিম খান ইউনিসের আল-মাওয়াসি এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে আল-জাজিরা অনলাইন। গাজা সরকারি গণমাধ্যম দপ্তর একটি বিবৃতিতে জানিয়েছে, হামলায় বেসামরিক প্রতিরক্ষা কর্মীরাও আহত কিংবা নিহত হয়েছে। আল-জাজিরা জানিয়েছে, ইসরায়েলি যুদ্ধবিমান আল-নুস গোলচত্বরের কাছে বাস্তুচ্যুত ফিলিস্তিনিদের দিকে পাঁচটি ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে। আল-মাওয়াসিতে তাঁবু এবং একটি পানি পরিশোধন ইউনিটের কাছে ক্ষেপণাস্ত্রগুলো আঘাত হানে। আহতদের কাছের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। ইসরায়েলি সেনাবাহিনীর একটি রেডিও স্টেশন জানিয়েছে, এই হামলাকে ‘খুব গুরুত্বপূর্ণ’ বলে বর্ণনা করেছে সামরিক বাহিনী। একজন প্রত্যক্ষদর্শী বিবিসিকে জানিয়েছেন, হামলার স্থানটিকে দেখে মনে হচ্ছে একটি ‘ভূমিকম্প’ আঘাত হেনেছে।  ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, ধোঁয়াটে ধ্বংসাবশেষ এবং রক্তাক্ত হতাহতদের স্ট্রেচারে ওঠানো হচ্ছে। লোকজনকে তাদের হাত দিয়ে একটি বড় গর্তের ধ্বংসস্তূপ সরিয়ে বের হওয়ার জন্য মরিয়া চেষ্টা করতে দেখা গেছে।

নাইজেরিয়ায় স্কুল ভবন ধসে ২১ জনের মৃত্যু

নাইজেরিয়ায় স্কুল ভবন ধসে ২১ জনের মৃত্যু নাইজেরিয়ায় একটি স্কুল ভবন ধসে ২১ জনের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল শুক্রবার (১২ জুলাই) প্লাতেউ রাজ্যের সেইন্টস অ্যাকাডেমি কলেজে  ক্লাস চলাকালীন এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। নাইজেরিয়ার জাতীয় জরুরি ব্যবস্থাপনা সংস্থা জানিয়েছে, উদ্ধাকারী, স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা উদ্ধার কাজে যোগ দিয়েছে। প্লাতেউর তথ্য কমিশনার মুসা আসোমস এক বিবৃতিতে বলেছেন, প্রায় ১২০ জন আটকা পড়েছিলেন।অনেককে উদ্ধার করা হয়েছে। রাজ্য কর্তৃপক্ষ এই ঘটনার জন্য স্কুলের ভাবনের কাঠামো হওয়ার বিষয়টিকে দোষারোপ করেছে। যেসব স্কুলের কাঠামো দুর্বল হয়ে পড়েছে সেগুলো বন্ধ করে দিতে আহ্বান জানিয়েছে তারা। স্কুল কর্তৃপক্ষ এখনো নিশ্চিত করেনি কতজন শিক্ষার্থী এবং শিক্ষক নিহত এবং আহত হয়েছেন। কিন্তু স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে নিহতদের পাশাপাশি ২৬ জনকে একটি নিকটস্থ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। স্থানীয় সংবাদ মাধ্যম গুলো শুক্রবার কমপক্ষে ১২ জনের মৃত্যুর খবর জানালেও, রেড ক্রসের একজন মুখপাত্র একটি আন্তর্জাতিক সংবাদ সংস্থাকে জানিয়েছে  কমপক্ষে ২১ জন শিক্ষার্থী নিহত হয়েছে। খবর আল জাজিরা

 দক্ষিণ এশিয়ায় জীবিকা নির্বাহ কঠিন হবে বলছে বিশ্বব্যাংক

দক্ষিণ এশিয়ায় জীবিকা নির্বাহ কঠিন হবে বলছে বিশ্বব্যাংক বিশ্বব্যাংকের দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের ভাইস প্রেসিডেন্ট মার্টিন রাইজার বলেছেন, ক্রমবর্ধমান ভূ-রাজনৈতিক ঝুঁকি এবং বৈশ্বিক বাণিজ্যের খ-িতকরণের কারণে সামনের দিনগুলোতে দক্ষিণ এশীয়দের জন্য উপযুক্ত জীবিকা নির্বাহে কাজ পাওয়া আরও কঠিন হবে। দুই দশক ধরে দক্ষিণ এশিয়ায় শ্রমশক্তিতে প্রবেশকারীদের সংখ্যা কমছে। শ্রমশক্তিতে নতুন প্রবেশকারীদের তুলনায় ৩০ কোটি কম চাকরি রয়েছে। আজ প্রকাশিত ‘রিথিংকিং সোশ্যাল প্রটেকশন ইন সাউথ এশিয়া : টুওয়ার্ডস প্রগ্রেসিভ ইউনিভার্সালিজম’ শীর্ষক প্রবন্ধে এসব তথ্য তুলে ধরেন রাইজার। তিনি বলেন, ‘সাম্প্রতিক বছরগুলোতে নেতিবাচক নানা ঝুঁকির অভূতপূর্ব সংমিশ্রণ আচ্ছন্ন করেছে দক্ষিণ এশিয়া। শ্রীলঙ্কায় করোনার প্রভাবে অর্থনৈতিক সংকটে প্রায় ৩০ লাখ মানুষকে দারিদ্র্যের দিকে ঠেলে দিয়েছে। পাকিস্তানে ২০২২ সালের বন্যা-জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য প্রায় ৯ দশমিক ১ মিলিয়ন মানুষকে দারিদ্রের দিকে ঢেলে দিয়েছে। ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্বব্যাপী জ্বালানি ও খাদ্য সংকট আরও প্রসারিত হয়েছে। যুদ্ধের প্রভাবে সরাসরি বিপাকে পড়েছেন দক্ষিণ এশিয়ার কর্মজীবী মানুষ।’ মার্টিন রাইজার মতে, বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জে দক্ষিণ এশিয়ার দ্রুত ক্রমবর্ধমান কর্মক্ষম জনসংখ্যার জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টির সুযোগ কমে যাচ্ছে। এমন সময়ে নতুন প্রযুক্তির উদ্ভাবন হয়েছে, যা বিশ্বকে এমনভাবে আগে প্রভাবিত করেনি।

চীনে জ্বালানি ট্যাঙ্কারে রান্নার তেল পরিবহন

চীনে জ্বালানি ট্যাঙ্কারে রান্নার তেল পরিবহন চীনে রান্নার তেল পরিবহনের জন্য জ্বালানি ট্যাঙ্কার ব্যবহার করার ঘটনা ঘটেছে। বৃহস্পতিবার (১১ জুলাই) চীনা সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে দ্য গার্ডিয়ান এ তথ্য জানিয়েছে। গত সপ্তাহে সরকারি সংবাদপত্র বেইজিং নিউজ জানিয়েছে, তাদের একজন আন্ডারকভার প্রতিবেদক এক ট্রাক চালকের সাক্ষাৎকার নিয়েছিলেন। ওই চালক চীনের পশ্চিমে নিংজিয়া থেকে একটি ট্যাঙ্কার নিয়ে হেবেইয়ের পূর্ব উপকূলীয় শহর কিনহুয়াংদাওতে গিয়েছিলেন।  এক হাজার ২৯০ কিলোমিটার দূরের ওই পথ থেকে তাকে খালি গাড়ি নিয়ে ফেরার অনুমতি দেওয়া হয়নি। তাকে ট্যাঙ্কারটি পরিষ্কার না করেই প্রায় ৩২ টন সয়াবিন তেল লোড করার জন্য হেবেইয়ের অন্য অংশে একটি কেন্দ্রে পাঠানো হয়। একই বৈশিষ্ট্যযুক্ত আরও কয়েকটি ট্যাঙ্কারে সয়াবিন তেল লোড করা হয়েছিল। এই কেলেঙ্কারিতে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন তেল ও শস্য কোম্পানি সিনোগ্রেন এবং বেসরকারি সংস্থা হোপফুল গ্রেইন অ্যান্ড অয়েল গ্রুপসহ বেশ কয়েকটি বড় চীনা কোম্পানি জড়িত রয়েছে। উভয় সংস্থা জানিয়েছে, তারা অভিযোগ তদন্ত করছে। চলতি সপ্তাহে চীনের স্টেট কাউন্সিলের অধীনে খাদ্য নিরাপত্তা কমিশনের কার্যালয় জানিয়েছে, তারা অভিযোগ তদন্ত করছে এবং ‘যে ব্যক্তিরা ট্যাঙ্কার ট্রাকের অনুপযুক্ত ব্যবহারের মাধ্যমে আইন লঙ্ঘন করেছে তাদের কঠোর শাস্তির সম্মুখীন হতে হবে।’ এই ট্যাঙ্কারগুলোতে পরিবহন করা রান্নার তেল শেষ পর্যন্ত কোথায় পৌঁছানো হয়েছে তা স্পষ্ট নয়। বেইজিং নিউজ জানিয়েছে,  ট্যাঙ্কারগুলো চীনে গৃহস্থালী ব্র্যান্ডগুলোর প্যাকেজিং কেন্দ্রে তেল সরবরাহ করেছিল। তবে তেল শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট একজন ব্যক্তি জানিয়েছেন, কিছু তেল শেষ পর্যন্ত বিদেশে রপ্তানির জন্য ছোট বোতলে প্যাকেটজাত করা হতে পারে।

গাজা শহর থেকে সব বাসিন্দাকে বের হয়ে যাওয়ার নির্দেশ ইসরায়েলের

গাজা শহর থেকে সব বাসিন্দাকে বের হয়ে যাওয়ার নির্দেশ ইসরায়েলের গাজা শহরের সব বাসিন্দাকে বের হয়ে যেতে বলেছে ইসরায়েলি বাহিনী। বুধবার বার্তা সংস্থা এএফপি এ তথ্য জানিয়েছে।  বার্তা সংস্থাটি জানিয়েছে, বাসিন্দাদের বের হয়ে যেতে গাজা সিটিতে হাজার হাজার লিফলেট ফেলেছে ইসরায়েলি বাহিনী। লিফলেটে ‘গাজা শহরের প্রত্যেককে’ সম্বোধন করে শহর থেকে আরও দক্ষিণে মনোনীত নিরাপদ এলাকায় যাওয়ার রুট নির্ধারণ করা হয়েছে। একইসঙ্গে সতর্ক করে দিয়ে বলা হয়েছে,  সেনাবাহিনী হামাসের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানলে শহুরে এলাকা ‘একটি বিপজ্জনক যুদ্ধ অঞ্চলে পরিণত হবে।’ এর আগে ২৭ জুন শহরের একটি অংশ থেকে বাসিন্দাদের বের হয়ে যাওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছিল ইসরায়েলি বাহিনী। বুধবার আকাশ থেকে ফেলা লিফলেটগুলোতে বলা হয়েছে, বাসিন্দারা ‘দ্রুত এবং পরিদর্শন ছাড়াই গাজা সিটি থেকে দেইর আল-বালাহ এবং আল-জাওইয়াতে আশ্রয়কেন্দ্রে’ দুটি নিরাপদ সড়ক বেছে নিতে সক্ষম হবে। এএফপি জানিয়েছে, দেইর আল-বালাহতে বাসিন্দাদের সরে যেতে বলা হলেও সেখানে ইসরায়েলি বাহিনীর হামলা চলছে। জাতিসংঘ ইসরায়েলের এই আদেশে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছে, তারা ফিলিস্তিনিদের এমন অঞ্চলে যেতে বলেছে যেখানে যুদ্ধ চলছে।

ভারতে এক্সপ্রেসওয়েতে ভয়াবহ দুর্ঘটনায় নিহত ১৮

ভারতে এক্সপ্রেসওয়েতে ভয়াবহ দুর্ঘটনায় নিহত ১৮ ভারতের এক্সপ্রেসওয়েতে ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনায় কমপক্ষে ১৮ জন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ১৯ জন। এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, বুধবার (১০ জুলাই) স্থানীয় সময় ভোর ৫টার উত্তর প্রদেশের লখনৌ-আগ্রা এক্সপ্রেসওয়েতে ডাবল-ডেকার বাসের সঙ্গে দুধের ট্যাংকারের সংঘর্ষে হতাহতের এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ জানিয়েছে, ডাবল-ডেকার বাসটি বিহার রাজ্যের সীতামারহি থেকে দিল্লির দিকে যাচ্ছিল। পথিমধ্যে বাসটি বুধবার ভোরে লখনৌ-আগ্রা এক্সপ্রেসওয়েতে পেছন থেকে দুধের একটি ট্যাংকারকে ধাক্কা দেয়। দুর্ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে আহতদের দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে এবং সেখানে তাদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।  উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ এ দুর্ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন এবং আহতদের যথাযথ চিকিৎসা নিশ্চিত করতে কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছেন বলে তার অফিস জানিয়েছে।

‘পুরুষদের আত্মহত্যার জন্য নারীরা দায়ী’

‘পুরুষদের আত্মহত্যার জন্য নারীরা দায়ী’ আত্মহত্যার ক্ষেত্রে পুরুষদের সংখ্যা বৃদ্ধির জন্য নারীরা দায়ী। দক্ষিণ কোরিয়ার এক রাজনীতিবিদ এ মন্তব্য করেছেন বলে বুধবার জানিয়েছে বিবিসি। সিউল সিটি কাউন্সিলর কিম কি-ডাক জানিয়েছেন, বছরের পর বছর ধরে কর্মক্ষেত্রে নারীদের অংশগ্রহণ বৃদ্ধি পুরুষদের চাকরি পাওয়া এবং তাদের বিয়ে করতে চায় এমন নারীদের খুঁজে পাওয়া কঠিন করে তুলেছে। তিনি বলেছেন, সম্প্রতি দক্ষিণ কোরিয়া ‘নারীপ্রধান সমাজে পরিবর্তিত হতে শুরু করেছে’ এবং এটি ‘পুরুষদের আত্মহত্যার প্রচেষ্টা বৃদ্ধির জন্য আংশিকভাবে দায়ী’ হতে পারে। বিশ্বের ধনী দেশগুলোর মধ্যে দক্ষিণ কোরিয়ায় আত্মহত্যার হার সবচেয়ে বেশি। কিন্তু লিঙ্গ সমতার ক্ষেত্রেও সবচেয়ে খারাপ রেকর্ড রয়েছে দেশটিতে। ডেমোক্রেটিক পার্টির কাউন্সিলর কিম রাজধানী সিউলের হান নদীর সেতুতে আত্মহত্যার চেষ্টার সংখ্যার তথ্য বিশ্লেষণ করেছেন। সিটি কাউন্সিলের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদনে দেখানো হয়েছে, নদীর তীরে আত্মহত্যার চেষ্টা করা ব্যক্তির সংখ্যা ২০১৮ সালে ছিল ৪৩০। ২০২৩ সালে এই সংখ্যা বেড়ে হয়েছে এক হাজার ৩৫। এদের মধ্যে পুরুষদের অনুপাত ৬৭ শতাংশ থেকে বেড়ে ৭৭ শতাংশে পৌঁছেছে। বিশেষজ্ঞরা কিমের এই মন্তব্যে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। সিউলের ইয়নসেই বিশ্ববিদ্যালয়ের মানসিক স্বাস্থ্যের অধ্যাপক সং ইন হ্যান বিবিসিকে বলেছেন, ‘পর্যাপ্ত প্রমাণ ছাড়াই এই ধরনের দাবি করা বিপজ্জনক এবং বোকামির কাজ।’

ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিধসে নিহত ১১, নিখোঁজ ১৯

ইন্দোনেশিয়ায় ভূমিধসে নিহত ১১, নিখোঁজ ১৯ ইন্দোনেশিয়ায় ভারী বৃষ্টিতে ভূমিধসে অন্তত ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় নিখোঁজ রয়েছেন ১৯ জন। আজ সংবাদমাধ্যম এএফপির প্রতিবেদনে জানা গেছে, দেশটির সুলাসি দ্বীপের গোরন্তালো প্রদেশের বোন বোলাঙ্গ জেলার প্রত্যন্ত গ্রামে অবৈধ সোনার খনিতে নিরাপত্তা না থাকায় ১১ জনের মৃত্যু হয়। ইন্দোনেশিয়ার উদ্ধারকারী সংস্থা বাসারনাসের স্থানীয় প্রধান হেরিয়ান্তো বলেন, ভূমিধসের ধ্বংসাবশেষের নিচ থেকে ৮ জনের মরদেহ বের করে নিয়ে আসা হয়েছে। এছাড়া ৫ জনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। ৩ জন নিহত লোকের দেহ এখনো উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। হেরিয়ান্তো জানান, ভূমিধসে এলাকার বেশ কয়েকটি সেতু ভেঙে পড়েছে এবং উদ্ধারকর্মীদের হেঁটে দুর্ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে হচ্ছে।