স্মার্ট মৎস্যচাষি গড়ছে জেলা মৎস্য বিভাগ

38

স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে মাছচাষিদেরও স্মার্ট করে গড়ে তোলা হচ্ছে। এজন্য তাদেরকে ব্যাচভিত্তিক প্রশিক্ষণ দিচ্ছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে জেলা মৎস্য অফিস। ধাপে ধাপে তাদেরকে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। কখন কোন মাছ কোন পদ্ধতিতে চাষ করলে লাভবান হওয়া যায় তা হাতেকলমে শিক্ষা দেয়া হচ্ছে। তারই অংশ হিসেবে গত ৫ ফেব্রুয়ারি শুরু হওয়া প্রশিক্ষণ বৃহস্পতিবার শেষ হয়। দ্বিতীয় ব্যাচের এই প্রশিক্ষণে জলবায়ু সহিষ্ণু ও প্রযুক্তিভিত্তিক মনোসেক্স তেলাপিয়া মাছচাষ বিষয়ে মাছচাষি দলের সুফলভোগীদের প্রশিক্ষণ দেয়া হয়। মৎস্য অধিদপ্তরের ‘ক্লাইমেট স্মার্ট এগ্রিকালচার অ্যান্ড ওয়াটার ম্যানেজমেন্ট প্রকল্প’র আওতায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা মৎস্য অফিস এই প্রশিক্ষণের আয়োজন করে। ২০ জন মৎস্যচাষি এই প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করেন এবং বৃহস্পতিবার সমাপনী দিনে প্রশিক্ষণের অংশ হিসেবে মাঠ পরিদর্শন করানো হয়। জেলাশহরের আলীনগরে জেলা মৎস্য অফিসারের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত প্রশিক্ষণে তৃতীয় দিনে প্রধান আলোচক ছিলেন- মৎস্য অধিদপ্তর, রাজশাহী বিভাগের উপপরিচালক মো. আব্দুল ওয়াহেদ মন্ডল। প্রশিক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- শিবগঞ্জের সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা ড. মো. আবু বক্কর ছিদ্দিক। এছাড়াও চার দিনের প্রশিক্ষণে প্রশিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মো. আমিনুল ইসলাম, সদর উপজেলার সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. মাসুদ রানা, নাচোলের সিনিয়র উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. ইমরুল কায়েস, গোমস্তাপুরের উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোছা. সুমিতা খাতুন, মৎস্য বীজ উৎপাদন খামার-নাচোলের খামার ব্যবস্থাপক মো. আব্দুর রহিম। কোর্স পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন জেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. মাহবুবুর রহমান ও কোর্স সমন্বয়কারীর দায়িত্ব পালন করেন সদর উপজেলা সহকারী মৎস্য কর্মকর্তা মো. নাইমুল হক।