সন্তানের অপেক্ষায় পরী-রাজ

29

আর মাত্র ক’টা দিন পরই  মা চিত্রনায়িকা পরীমণি ও চিত্রনায়ক শরিফুল রাজের ঘর আলোকিত করে আসবে ফুটফুটে সন্তান। এরই মধ্যে অনাগত সন্তানের ব্যবহারের জন্য প্রায় সবকিছুরই ব্যবস্থা করে ফেলেছেন। গায়ের জামা থেকে শুরু করে জুতা, ডায়াপারসহ একটি শিশুর জন্য প্রয়োজনীয় সবকিছু প্রস্তুত করে রেখেছেন দম্পতি। সেটি অনুরাগীদের সঙ্গে ভাগ করে নিতে ভোলেননি এই তারকাজুটি।

মঙ্গলবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্য একটি ভিডিও ও কয়েকটি ছবি শেয়ার করেছেন পরীমণি। সেখানে দেখা যাচ্ছে, জামা থেকে শুরু করে একটি নবজাতকের যা কিছু প্রযোজন, সব কিছুই বিছানার ওপর বিছিয়ে রেখেছেন তারা। পাশে অর্ধশায়িত পরীমণি নায়ক শরিফুল রাজের গায়ে হেলান দিয়ে দুজনেই নবজাতকের জন্য কেনা জিনিসগুলোর দিকে তাকিয়ে আছেন। তাদের চোখে মুখে অনন্দমাখা হাসি।

সেই পোস্টের ক্যাপশনে পরীমণি লিখেছেন, ‘তার আসার আয়োজন…’। পরীমণির সেই পোস্টে তার ভক্ত-শুভকাঙ্ক্ষীরা অভিনন্দন জানাচ্ছেন। অভিনত্রী এলিনা শাম্মি লিখেছেন, ‘আসুক, দুনিয়ায় আলো আসুক।’

চয়নিকা চৌধুরী লিখেছেন, ‘অনেক অনেক শুভ কামনা’।

তুরান মুনসি লিখেছেন, ‘সারা জীবন মানুষের বাচ্চার জন্য গিফট কিনেছেন আজ নিজেদের বাচ্চার জন্য আনন্দের অনুভূতি।’

রেজওয়ান আলম হীরা লিখেছেন, ‘আহা…তার আসা খুব সহজ আর সুন্দর হোক….। মঙ্গল কামনা করছি আগামী প্রতি মুহূর্তের….।’

Raj

এর আগে রবিবার (৩১ জুলাই) পরীকে দেখতে তার বাসায় গিয়েছিলেন নির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী। পরী তাকে ‘মা’ বলেই সম্বোধন করেন। তিনি পরীর জন্য নানান পদের খাবার রান্না করে নিয়ে যান। পরম আদরে নিজ হাতে পরীর প্লেটে খাবার তুলে দেন।

পরী। ফেসবুকে ছবি পোস্ট করে তিনি লেখেন, ‘তোমাকে নিয়ে কিছু লেখাটা আমার জন্য আসলেই কঠিন হয়ে যায় সবসময়। কি যে লিখতে চাই, সেসব ঠিক লিখতেই পারি না কখনও। আমার এই মা হওয়ার জার্নিতে শুরু থেকেই তো তুমি ছিলে। কত যত্ন করেছো সবসময়! এসবের কৃতজ্ঞতা কি আর এমনিই এমনিই বলা হয়ে যায় বলো। মায়েরা এমনি তাই না! আমিও তোমার মতো একজন প্রাউড মাদার হব, দেখো। মন ভরে দোয়া দিও এভাবেই।’

পরী আরও লেখেন, ‘তার (চয়নিকা চৌধুরী) এত ব্যস্ততার মাঝেও আমার জন্য এসব করতে ভোলেননি। মা শোনো, আই লাভ ইউ অনেক অনেক অনেক।’

গত বছরের ১৭ অক্টোবর গোপনে একে-অপরকে জীবনসঙ্গী হিসেবে গ্রহণ করেন পরীমণি ও শরিফুল রাজ। তবে খবরটি প্রকাশ্যে এনেছেন এ বছরের ১০ জানুয়ারি। একইদিন ঘোষণা করেন, একটি সন্তান আসছে তাদের ঘরে। এরপর ২২ জানুয়ারি পারিবারিক আয়োজনে বিয়ে সারেন রাজ-পরী।