‘রোহিঙ্গাদের ভাসানচরে পাঠানোর সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত হয়নি’

136

রোহিঙ্গাদের নোয়াখালীর ভাসানচরে নেয়ার বিষয়ে এখনো চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি জানিয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান বলেছেন, ‘সরকার এখন ভাসানচরের চেয়ে রোহিঙ্গাদের স্বদেশে ফেরত পাঠানোর বিষয়টি গুরুত্ব দিচ্ছে। খুব শীঘ্রই রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের সম্ভাবনা আছে।’ বুধবার দুপুরে কক্সবাজারের উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প-৪ (এক্স) এ কয়েকটি বিতরণ কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে এসব কথা বলেন তিনি।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান বলেন, ‘রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিয়ে ত্রিদেশীয় আলোচনা চলছে। মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের স্বদেশে ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়া এখনো অব্যাহত রয়েছে। কাঙ্ক্ষিত সেই রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরুর লক্ষ্যে চীন, মিয়ানমার ও বাংলাদেশ ত্রিদেশীয় আলোচনা অব্যাহত রয়েছে।’

তিনি আরো বলেন, ‘জননেত্রী শেখ হাসিনার মানবতায় আজ ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গার জীবন বেঁচে আছে। জাতিসংঘের ৭৩তম অধিবেশনও তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে আলোচনা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। দুই দফা চেষ্টার পরও রোহিঙ্গাদের শর্তের ‍মুখে প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়া চালু করা যায়নি। তাই আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মাধ্যমে মিয়ানমারকে চাপ প্রয়োগও অব্যাহত রাখা হয়েছে।’

রোহিঙ্গা ক্যাম্পর আইনশৃঙ্খলা ও আধিপত্য বিস্তার বন্ধে কী উদ্যোগ নিবে সরকার এমন প্রশ্নে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের কাছে খবর আসে, রোহিঙ্গাদের মধ্যে সংঘর্ষ লেগেই থাকে। আগামীকাল বৃহস্পতিবার এবিষয়ে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের এক বৈঠক রয়েছে। সেখানে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হবে। তারপর এসব বন্ধে কার্যকর ভুমিকা রাখা হবে। তবে, এখনো এসব দমনে র‌্যাব, পুলিশ, বিজিবি, সেনাবাহিনীসহ গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন কাজ করছে।

পরিদর্শনকালে আরও উপস্থিত ছিলেন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি ক্যাপ্টেন এবি তাজুল ইসলাম এমপি, সদস্য লে. জেনারেল (অব) মাসুদ উদ্দিন এমপি, মীর মোস্তাক হোসেন এমপি, আর এন জুয়েল এমপি, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব শাহ কামাল, ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মাহবুব আলম।