যেভাবে মাথার ত্বক সুস্থ রাখবেন

53

মাথার তালু সুস্থ থাকলে চুলের গোড়া মজবুত থাকে, চুল পড়া রোধ হয় এবং সংক্রমণ ও খুশকিজাতীয় সমস্যা দূর হয়। তাই চুলের পাশাপাশি মাথার ত্বকের যত্ন নিতে ভুলবেন না। বোল্ডস্কাই ওয়েবসাইটের জীবনধারা বিভাগে মাথার ত্বক সুস্থ রাখার কয়েকটি পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

তেলের ম্যাসাজ : মাথার ত্বক সুস্থ রাখতে তেল দিয়ে ম্যাসাজ খুবই সাধারণ, কিন্তু কার্যকর পদ্ধতি। এর মাধ্যমে মাথার ত্বকে রক্ত সঞ্চালন ভালো হয় এবং তেল প্রতিটি চুলের গোড়ায় পুষ্টি জোগায়।

আপেল সিডার ভিনেগার : মাথার ত্বকের শুষ্কতা দূর করতে আপেল সিডার ভিনেগার খুবই উপকারী। আধা কাপ পানির সঙ্গে আধা কাপ আপেল সিডার ভিনেগার মিশিয়ে মাথার ত্বক ধুয়ে নিন। এ ছাড়া আপেল সিডার ভিনেগারের সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে ব্যবহার করলে মাথার তালুর শুষ্কতা দূর হওয়ার পাশাপাশি খুশকিও দূর হবে।

অ্যালোভেরার রস : মাথার ত্বকের র‍্যাশ, রোদে পোড়া দাগ ও ব্রণ দূর করে ত্বক সুস্থ রাখতে সাহায্য করে অ্যালোভেরার রস। এ ছাড়া এই উপাদান মাথার তালুর চুলকানি, খুশকি ও তেলতেলে ভাবও দূর করে। অ্যালোভেরার রস দিয়ে মাথার ত্বকে কিছুক্ষণ ম্যাসাজ করুন। ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। এরপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এ ছাড়া অ্যালোভেরার রসের সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে মাথার তালুতে লাগিয়ে কিছুক্ষণ পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

কলার প্যাক : কলার মিনারেল, ভিটামিন ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস বিভিন্ন উপায়ে মাথার ত্বক সুস্থ রাখে। এ ছাড়া এই ফল মাথার ত্বকে কন্ডিশনারের কাজ করে এবং পানিশূন্যতা দূর করে। কলার সঙ্গে মধু ও টক দই মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন। এই প্যাক মাথার ত্বকে লাগিয়ে ১৫ মিনিট অপেক্ষা করুন। এবার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

গ্রিন টি : গ্রিন টির অ্যান্টিঅক্সিডেন্টস মাথার তালুর যেকোনো সংক্রমণ ও ব্রণ দূর করতে সাহায্য করে। গ্রিন টির পানি ঠান্ডা করে মাথার ত্বক ধুয়ে নিন। এবার মাইল্ড শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন।