বিশ্বে কত জাতের কাঁচা মরিচ জন্মে?

69

রান্নাঘরের অন্যতম অনুষঙ্গ হচ্ছে কাঁচা মরিচ। ঝালপ্রিয়দের কাছে কাঁচা মরিচ অনেক প্রিয়। সুস্বাদু তরকারির অন্যতম প্রধান উপাদান এই কাঁচা মরিচ। যা তরকারিতে ব্যবহার করা হয়। কাঁচা মরিচ ছাড়া তরকারি রান্না হয় না বললেই চলে।

অনেকেই আবার বিভিন্ন খাবারের সঙ্গে কাঁচা মরিচ কামড়ে খেতে পছন্দ করেন। তাই তরকারি হোক বা অন্য কিছু—একটু ঝাল তো চাই-ই। পরিমিত ঝাল না হলে অনেকের কাছে তরকারি স্বাদহীন হয়ে যায়।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অসংখ্য রকমের মরিচ চাষ হয়। এই মরিচের আবার আছে বিভিন্ন জাত। উল্লেখ্যযোগ্য সেই জাত হলো—

১. রোপা ঝাল মরিচ
২. বোনা ঝাল মরিচ
৩. মিষ্টি মরিচ।

এই তিনটি জাতের মধ্যেও আছে অসংখ্য জাতের মরিচ। যেমন- কামরাঙ্গা, বোম্বাই মরিচ, কৃষ্ণকলি, ঘৃতকুমারী, সূর্যমুখী, চন্দ্রমুখী, সিটিন, বালিজুরী, জারলা, বারোমাসি, উবধা, পুষা জাওলা, বাইন, সাইটা, শিকারপুরী, ক্যালিফোর্নিয়া ওয়ান্ডার, ম্লিমপিম, ওয়ান্ডার বেল, ফুসিমি লংগ্রিন, বারি মরিচ-১, বারি মরিচ-২, বারি মরিচ-৩, সনিক, প্রিমিয়াম, ধুম, মেজর, ডেমন, হটমাস্টার, সুপার হট, এম এস ফায়ার, যমুনা, বিজলি প্লাস প্রভৃতি।

এছাড়া বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলে কাঁচা মরিচ ‘আকালি’ নামে পরিচিত। টাঙ্গাইল জেলার পাহাড়ের ঢালু অঞ্চলের কাঁচা মরিচকে ‘ধাইন্যা মরিচ’ বলা হয়।