নাক দিয়ে রক্ত পড়া থামাতে যা করবেন

409

শরীরের সংবেদনশীল অঙ্গগুলোর মধ্যে অন্যতম নাক। যা শতাধিক রক্তনালীর সঙ্গে যুক্ত। ফলে সামান্য আঘাতেই রক্তক্ষরণ শুরু হতে পারে।স্বাস্থ্যবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ডাক্তারি ভাষায় নাক দিয়ে রক্তক্ষরণকে বলা হয় ‘এপিসটাক্সেস’। প্রধানত, নাকের মেমব্রেইন বা ঝিল্লি শুকিয়ে যাওয়া এবং নাক খোটানোই এর কারণ।

পেঁয়াজ: পেঁয়াজের ঝাঁঝ রক্ত জমাট বাঁধতে সহায়ক, যা রক্তপাত বন্ধ করে। এছাড়াও এতে থাকে ভিটামিন সি ও বায়ো-ফ্লাভোনয়েডস, যা কৈশিক নালী শক্তিশালী করে।
একটি পেঁয়াজ দুভাগ করে নাকের নিচে নিয়ে শ্বাস-প্রশ্বাসের মাধ্যমে ঝাঁঝ নিতে হবে। কয়েক মিনিট এভাবে ঝাঁঝ নিলে রক্তক্ষরণ কমবে।
ধনিয়া: রক্তনালীতে রক্তচাপের ভারসাম্য বজায় রাখার মাধ্যমে রক্তপাত বন্ধ করে ধনিয়া। পাশাপাশি প্রাকৃতিক ‘অ্যান্টিহিসটামিন’ হিসেবে এবং নাক থেকে রক্তপাত হওয়ার জন্য দায়ী অ্যালার্জি থেকে দূরে রাখে। ড্রপারের সাহায্যে দুতিন ফোঁটা ধনিয়ার তেল অথবা তাজা ধনিয়ার রস নাকের ভেতরের অংশের চারপাশে প্রয়োগ করতে হবে।
তুলসি: স্নায়ুর ওষুধ যা ক্ষতিগ্রস্ত স্নায়ু শিথিল করে। কয়েকটি তুলসি পাতা থেকে রস বের করে ড্রপারের সাহায্যে প্রতি নাকে দুই ফোঁটা করে দিতে হবে। কাঁচাতুলসি পাতা চিবিয়েও খেতে পারেন।
অন্যান্য উপায়
– কটনবাডে ভিটামিন ই তেল মাখিয়ে নাকের ভেতরের প্রয়োগ করতে হবে। তেলের বদলে পেট্রোলিয়াম জেলিও ব্যবহার করতে পারেন। এতে নাকের ভেতরের অংশ আর্দ্র থাকে।
– বেশি পরিমাণে ভিটামিন সি-যুক্ত খাবার খেতে হবে। কারণ ভিটামিন সি ‘কোলাজেন’ তৈরি করে যা নাকের ভেতরের অংশ আর্দ্র রাখে।
– অপরিশোধিত গমের রুটি এবং বাদামি চাল যোগ করতে হবে দৈনন্দিন খাদ্যাভ্যাসে। কারণ, এতে থাকে দস্তা, যা রক্তনালী সুরক্ষিত রাখে।