নকল ঠেকাতে উন্নত প্রযুক্তি চীনে

523

পরীক্ষায় নকল ঠেকাতে উন্নত প্রযুক্তির ব্যবস্থা করছে চীনা শিক্ষা কর্তৃপক্ষ। লাখ লাখ উচ্চমাধ্যমিকস্কুলের শিক্ষার্থীর ‘গাওকাও’ পরীক্ষাকে সামনে রেখে এ পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। চীনে উচ্চ শিক্ষার প্রতিষ্ঠানগুলোতে ভর্তি হওয়ার আগে ‘গাওকাও’ পরীক্ষা দিতে হয়। এই পরীক্ষায় এত বেশি প্রতিযোগিতা হয় যে, অনেক শিক্ষার্থীই অসাধু উপায় অবলম্বন করে থাকে, বলা হয়েছে রয়টার্স-এর প্রতিবেদনে। কয়েক বছর ধরে এ পরীক্ষায় পরীক্ষার্থীরা ইরেজার, বেল্ট আর ঘড়ির সঙ্গে নকল সহায়ক ডিভাইস ব্যবহার করছেন। কেউ কেউ ছোট ‘ইয়ারপিস’ ব্যবহার করেন, যা দিয়ে পরীক্ষার হলের বাইরে থাকা কারও সঙ্গে যোগাযোগ করে সহায়তা নেওয়া হয়। বাস্তব পরিস্থিতি বিবেচনায় নতুন পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। চলতি বছর পরীক্ষার হলগুলোতে মেটাল ডিটেকটর, ফেসিয়াল ও ফিঙ্গারপ্রিন্ট রিকগনিশন প্রযুক্তি, সেলফোন-সিগন্যাল ব্লকার, ওয়্যারলেস ডিটেকটর ও এমনকি ড্রোন প্রযুক্তিও ব্যবহার করা হচ্ছে। মঙ্গলবার এ পরীক্ষা শুরু হওয়ার আগে, দেশব্যাপী ৫২ জনকে আটক করেছে দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী। অসাধু উপায় অবল্মবনকারী ও তাদের সহায়কদের সাত বছর পর্যন্ত কারাদ- দেওয়া হয়েছে। দেশটির শ্যানদং প্রদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো মঙ্গল ও বুধবার শিক্ষার্থীদের ছুটি বাতিল করেছে, যাতে তাদের কেউ ‘আসল পরীক্ষার্থী’ সেজে অন্য কারও পরীক্ষা দিয়ে আসতে না পারে, বুধবার দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা শিনহুয়া এ খবর জানায়। প্রতিবেদনে বলা হয়, চীনে গণিত আর ইংরেজির মতো যেসব বিষয়ে বহুনির্বাচনী প্রশ্ন রয়েছে, সেগুলোতে নকল খুবই প্রচলিত বিষয়। তবে, রচনা লেখার মতো বিষয়গুলোতে নকল করা কিছুট কঠিন হয়ে পড়ে। দেশটির প্রদেশগুলোতে ভিন্ন ভিন্ন বিষয়ে রচনা লিখতে দেওয়া হয়।