টাক মাথায় চুল গজানোর ৪ উপায়!

80

মাথায় টাক পড়া নিয়ে সমস্যায় ভুগতে হয় অনেকেরই। পুরুষের ক্ষেত্রে এই সমস্যা বেশি দেখা যায়। চুল পড়তে পড়তে একটা সময় তার ঘনত্ব কমতে থাকে। এরপর চুলের ফাঁক গলে দেখা দেয় টাক। সৌন্দর্যের প্রতীক মাথাভর্তি চুল হারিয়ে তখন মন খারাপ হয় অনেক পুরুষেরই। অনেকের আবার অল্প বয়সেই টাক পড়ে যায়। যে কারণে তাকে বয়সের চেয়ে বেশি বয়স্ক লাগে। তাই টাক নিয়ে চিন্তাটাও থাকে বেশি। এমন কিছু উপায় আছে যেগুলো মেনে চললে টাক মাথায় চুল গজাবে সহজেই। চলুন জেনে নেওয়া যাক এমনই ৪টি উপায় সম্পর্কে-

১. নিমপাতা ব্যবহার
ত্বকের বিভিন্ন সমস্যা সারাতে কাজ করে নিমপাতা। তবে শুধু ত্বকই নয়, এটি চুলের যত্নেও সমান কার্যকরী। টাক মাথায় নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে নিমপাতা। প্রথমে একমুঠো নিমপাতা নিয়ে এক লিটার পানিতে ফুটিয়ে নিতে হবে। এবার মিশ্রণটি নামিয়ে ঠান্ডা করে নেবেন। ঠান্ডা হলে বোতলে সংরক্ষণ করবেন। যখনই চুলে শ্যাম্পু করবেন তারপর নিমের এই পানি দিয়ে চুল ধুয়ে নেবেন। সপ্তাহে একদিন এটি ব্যবহার করবেন। এতে মাথার ত্বকের সংক্রমণ ও খুশকির সমস্যা কমবে। চুলের গোড়া মজবুত হবে এবং নতুন চুলও গজাবে।

২. পেঁয়াজের রস ব্যবহার
পেঁয়াজের অনেক পুষ্টিগুণ রয়েছে। নিয়মিত পেঁয়াজ খেলে শরীরের জন্য উপকার নিয়ে আসে। তবে পেঁয়াজের রস ব্যবহার করে টাক মাথায় চুল ফিরিয়ে আনতে পারেন, তা কি জানতেন? পেঁয়াজের ঝাঁঝালো গন্ধ আপনার কাছে ভালো না-ই লাগতে পারে তবে আপনার চুলের জন্য বেশ উপকারী। পেঁয়াজের রস ব্যবহার করলে তা চুল পড়া কমাতে ও নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে। এটি তৈরি করার জন্য পেঁয়াজ ভালোভাবে বেটে নিয়ে পানি মিশিয়ে নিন। এবার এই মিশ্রণ মাথায় লাগিয়ে নিন ভালোভাবে। এভাবে আধাঘণ্টার মতো রেখে হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। এভাবে সপ্তাহে ২-৩ বার ব্যবহার করলেই সুফল পাবেন।

৩. মেথি ব্যবহার
নতুন চুল গজানোর ক্ষেত্রে কার্যকরী একটি উপাদান হলো মেথি। প্রথমে পরিষ্কার পানিতে মেথি ভিজিয়ে রাখতে হবে। সকালে উঠে ব্লেন্ড করে নিন। এবার সেই বাটা মেথি সরাসরি চুলে ব্যবহার করুন। চাইলে এর সঙ্গে দই ও মধু মিশিয়ে নিতে পারেন। মাথার ত্বক ও চুলে ব্যবহার করার পর অপেক্ষা করুন শুকিয়ে না যাওয়া পর্যন্ত। এরপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে নিন। এভাবে সপ্তাহে একবার ব্যবহার করলে উপকার পাবেন।

৪. কালোজিরা ব্যবহার
যদি কেবল মেথি ব্যবহার করে উপকার না পান তাহলে তার সঙ্গে কালোজিরা মিশিয়ে নিতে পারেন। প্রথমে এই দুই উপাদান রোদে শুকিয়ে নিন। এরপর গুঁড়া করে নারিকেল তেলের সঙ্গে মিশিয়ে নিতে হবে। তেলের এই মিশ্রণ ফুটিয়ে ঠান্ডা করে নিন। এরপর একটি কাঁচের বোতলে সংরক্ষণ করুন। এই তেল দুই সপ্তাহ পর্যন্ত ভালো থাকবে। সপ্তাহে তিন দিন চুলে ব্যবহার করলে সুফল পাবেন।