জিডিপিতে কৃষির ভূমিকা অনস্বীকার্য : পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

86

দেশের জিডিপিতে কৃষির ভূমিকা অনস্বীকার্য বলে মন্তব্য করেছেন পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক শামসুল আলম।
তিনি শনিবার সকালে শহরের বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) তিন দিনব্যাপী বাউরেস বার্ষিক গবেষণা অগ্রগতি কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
শামসুল আলম বলেন, কৃষির অর্থনৈতিক স্থীতিশীলতা ছাড়া জাতীয় অর্থনৈতিক স্থীতিশীলতা সম্ভব নয়। আর এজন্য কৃষির উৎপাদনশীলতা বাড়াতে হবে এবং কৃষিতে ব্যাপক গবেষণার উদ্যোগ নেয়া প্রয়োজন। বর্তমান সরকার কৃষিবান্ধব সরকার।
তিনি আরও বলেন, করোনা মহামারির কারণে জাতিসংঘ দূর্ভিক্ষের আশংকা করলেও আমাদের দেশের কৃষি দ্রব্যমূল্যস্ফীতি অতিক্রম পর্যন্ত করেনি। এটা কিন্তু সরকারের বড় সফলতা। সব ধরনের উন্নয়নসূচকে বাংলাদেশ এশিয়ার বৃহৎ দেশসমূহকে পেছনে ফেলে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।
অধ্যাপক ড. মো. জয়নাল আবেদীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সিনিয়র সচিব সাজ্জাদুল হাসান, ফুড এন্ড এগ্রিকালচার অরগানাইজেশন বাংলাদেশের সিনিয়র টেকনিক্যাল উপদেষ্টা ড. কাতারজিনা জাপলিনা, বাকৃবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. লুৎফুল হাসান, বাউরেসের সহযোগী অধ্যাপক ড.একেএম মমিনুল ইসলাম।
কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গবেষণা মূল্যায়নের আন্তর্জাতিক মানদন্ড এইচ-ইনডেক্সের উপর ভিত্তি করে সেরা ১৭ গবেষককে গ্লোবাল রিসার্চ ইমপ্যাক্ট রিকগনাইজেশন অ্যাওয়ার্ড-২০২২ প্রদান করা হয়, এর মধ্যে সর্বোচ্চ স্কোরধারী ৫ জন এবং অনুষদভিত্তিক একজন করে সিনিয়র ও জুনিয়র শিক্ষকসহ মোট ১২ জনকে এই অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়।
এছাড়াও কৃষিতে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে কৃষি উৎপাদনে বিশেষ অবদান রাখার জন্য খামার পর্যায়ের ৬ জন উদ্যোক্তাকে ‘প্রফেসর ড. আশরাফ আলী খান স্মৃতি কৃষি পুরস্কার-২০২২’ প্রদান করা হয়।