চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিশুদ্ধ খাদ্য আদালতের অভিযান : সতর্ক করা হলো ব্যবসায়ীদের

61

চাঁপাইনবাবগঞ্জে বিশুদ্ধ খাদ্য আদালতের অভিযান শুরু হয়েছে। বুধবার বিকাল ৩টা থেকে এ আদালত শুরু হয়। আদালত চলাকালীন জেলাশহরের শান্তি মোড়, বিশ্বরোড মোড়সহ বিভিন্ন এলাকার হোটেল ও রেস্টুরেন্টের বিএসটিআইয়ের অনুমোদনহীন বোরহানি, লাচ্চি, মাঠাসহ পচা-বাসি খাদ্যদ্রব্য জব্দ করে ধ্বংস করা হয়।
চাঁপাইনবাবগঞ্জ চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের প্রথম আদালতের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. নাজমুল হোসেনের নেতৃত্বে এই আদালত পরিচালনা করা হয়। অভিযানে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. তৌহিদুজ্জামান, বিএসটিআইয়ের পরিদর্শক উৎপল কুমার, ফিল্ড অফিসার শরীফ হোসেন, জেলা স্যানিটারি পরিদর্শক কোবাদ আলী উপস্থিত ছিলেন।
বিশুদ্ধ খাদ্য আদালত পরিচালনায় র‌্যাব, পুলিশ ও বিজিবি সদস্যরা সহযোগিতা করেন।
সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. নাজমুল হোসেন গৌড় বাংলাকে বলেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিশুদ্ধ খাদ্য আদালত আজ (গতকাল) বুধবার থেকে শুরু করা হলো। এর মাধ্যমে শুধু রমজান মাস বা শুধু জেলা শহরেই নয়, সারা জেলায় সারাবছর এখন থেকে এই আদালত চলমান থাকবে। তিনি জানান, খাদ্যে ভেজাল দেয়া হচ্ছে কী না, ওজন কম দেয়া হচ্ছে কী না, পচা-বাসি খাবার পরিবেশন করা হচ্ছে কী না, অতিরিক্ত মূল্য আদায় করা হচ্ছে কী না, মেয়াদ উত্তীর্ণ খাবার বিক্রি করা হচ্ছে কী না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তিনি বলেনÑ বেশ কয়েকটি হোটেল থেকে বিএসটিআইয়ের অনুমোদহীন বোরহানি, মাঠা, লাচ্চি, পচা ফলমূল, মেয়াদ উত্তীর্ণ বিস্কুট জব্দ করে তা ধ্বংস করা হয়েছে। সেই সঙ্গে ব্যবসায়ীদের সতর্ক করা হয়েছে। প্রথম দিন তাদেরকে সতর্ক করা হয়েছে। মানুষ সঠিক মূল্যে ও ওজনে বিশুদ্ধ খাদ্য যেন কিনতে পারে এবং খাদ্য কিনে প্রতারিত না হয় সেটা নিশ্চিত করতে আইনের সর্বোচ্চ শাস্তি প্রয়োগ করবে বিশুদ্ধ খাদ্য আদালত। তিনি বলেন, এ আদালতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, স্যানিটারি ইন্সপেক্টরসহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত থাকবেন।