ঘরোয়া উপায়ে বের করে ফেলুন কাঁটা

1104

অসাবধানতায় কিংবা দুর্ঘটনায় কাঠ বা বাঁশের সরু টুকরা হাত-পায়ের আঙুলে ঢুকে যাওয়ার যন্ত্রণায় অনেকেই পড়েছেন। এই সমস্যা সমাধানের জন্য রয়েছে সহজ উপায়।
চিকিৎসাবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটের প্রতিবেদনে জানানো হয় এই যন্ত্রণা থেকে রেহাই পেতে ব্যবহার করা যেতে পারে কলার খোসা, লবণ কিংবা বেইকিং সোডা।
এপসম সল্ট: অপর নাম ম্যাগনেসিয়াম সালফেট, যা মাংসে ঢুকে যাওয়া কোনো শক্ত সরু শক্ত বস্তু কোনো ব্যথা ছাড়াই বের করে আনতে সক্ষম।
প্রথমে একটি ব্যান্ডেজের আঠালো পার্শ্বে এপসম সল্ট মাখিয়ে নিতে হবে। এবার ব্যান্ডেজটি আক্রান্ত অংশে তিন থেকে চার ঘণ্টা লাগিয়ে পরে ব্যান্ডেজ খুলে নিন। তারপর জীবাণুমুক্ত চিমটা দিয়ে টুকরাটি বের করে নিতে সহজ হবে।
বেইকিং সোডা: আঙুলে বা নখের ফাঁকে ঢুকে থাকা টুকরাটি ছোট হলে এবং মাংসের অনেকটা গভীরে ঢুকে গেলে কাজে লাগাতে পারেন বেইকিং সোডা।
সমপরিমাণ বেইকিং সোডা ও পানি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে আক্রান্ত অংশে সরাসরি লাগিয়ে ব্যান্ডেজ করে রাখুন তিন ঘণ্টা। এতে আঙুল ফুলে যাবে এবং মাংসে ঢুকে থাকা টুকরাটিকে জোর করে বের করে আনবে।
কলার খোসা: কাঠের বা বাঁশের টুকরাটি যদি চামড়ার উপর দিয়ে দেখা যায় তবে সেটা বের করতে সহায়ক হতে পারে কলার খোসা। কলার খোসা চামড়া নরম করে, ফলে টুকরাটিকে ব্যথা ছাড়াই বের করা যায়।
এক্ষেত্রে কলার খোসার ভেতরের অংশ শরীরের আক্রান্ত অংশে একটি কাপড়ের সাহায্যে বেঁধে রাখতে হবে তিন থেকে চার ঘণ্টা। এরপর টুকাটিকে চিমটা দিয়ে বের করে নিতে সহজ হবে।
ডিমের খোসা: ডিমের খোসা এবং মূল ডিমের উপরের ঝিল্লি সহজেই চামড়া ভেদ করতে পারে, যা মাংসে ঢুকে থাকা ছোট বস্তু বের করার ক্ষেত্রে সহায়ক।
একটি কাঁচাডিম ভেঙে ঝিল্লিসহ খোসা শরীরের আক্রান্ত অংশে সারারাত বেঁধে রাখতে হবে। সকালে দেখবেন টুকরাটি কিছুটা বের হয়ে এসেছে। ফলে বাকিটা টেনে বের করা সম্ভব হবে।
কাঁচাআলু: মাংসে ঢুকে যাওয়া সরু বস্তু আংশিক দেখা গেলে তা বের করতে আলু ব্যবহার করতে পারেন।
আলু টুকরা করে আঙুলে ঢুকে থাকা সরু বস্তুর উপর হালকা চেপে ধরুন যাতে তা আলুতে আটকে যায়। এবার আলুর টুকরা সরানোর সঙ্গে টুকরাটিও বেরিয়ে আসবে।