গুগলের বেলুন ইন্টারনেট পেরুতে

345

বন্যা বিপর্যস্ত পেরুর লাখো গ্রাহককে ইন্টারনেট সেবা দেওয়ার মাধ্যমে ‘প্রজেক্ট লুন’ পরীক্ষা চালাচ্ছে গুগলের মূল প্রতিষ্ঠান অ্যালফাবেট।নতুন এই প্রকল্পের মাধ্যমে টেনিস কোর্টের সমান একটি বেলুনের সঙ্গে ছোট একটি বাক্সে রাখা যন্ত্রাংশ দিয়ে বিস্তৃত এলাকায় ইন্টারনেট পৌঁছে দিচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি, বলা হয়েছে বিবিসি-এর প্রতিবেদনে। পরীক্ষা চালানো অ্যালফাবেট দলটি বিবিসি-কে বলেন,তারা পেরুতে প্রযুক্তিটি পরীক্ষা করছেন। চলতি বছরের জানুয়ারিতে দেশটিতে ভয়াবহ বন্যা আঘাত হানে। এই প্রযুক্তি দেশটির যে তিনটি শহর বন্যায় বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে সে সব শহরের বাসিন্দাদের কাছে ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছে। এ যাবৎ ক্ষুদ্র পরিসরে প্রযুক্তিটি পরীক্ষা করা হচ্ছে বলে জানানো হয়। যুক্তরাজ্যে ‘অ্যাকুইলা’ নামে একই ধরনের প্রকল্প চালু করবে ফেইসবুক। ‘পজেক্ট লুন’-এর মাধ্যমে ফেইসবুকের সঙ্গেই প্রতিযোগিতা করছে অ্যালফাবেট। সম্প্রতি প্রজেক্ট লুন-এর পক্ষ থেকে ঘোষণা দেওয়া হয়, তারা বেলুন পরিচালনা করতে কীভাবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা (এআই) ব্যবহার করবে তার উপায় বের করেছে। বিভিন্ন আবহাওয়ায় বেলুনটি কীভাবে ওপর নীচে নামবে তা নিয়ন্ত্রণ করবে এআই। এই উদ্ভাবনের কারণেই লিমা, চিম্বুত এবং পিউরা-এর বাসিন্দাদেরকে বেলুনের মাধ্যমে ইন্টারনেট সেবা দেওয়া সম্ভব হচ্ছে বলে বিবিসি’র প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। পুয়ের্তো রিকো হতে বেলুনগুলো ওড়ানো হয়। পরবর্তীতে তা দক্ষিণ দিকে পরিচালনা করে পেরুতে আনা হয়। তিন মাস সময়ের মধ্যে এই প্রযুক্তির মাধ্যমে ইতোমধ্যে ১৬০ জিবি ডেটা আদান প্রদান করা হয়েছে। প্রজেক্ট লুন-এর প্রকৌশলী স্যাল ক্যানডিডো বলেন, “ব্যাপারটা হলো স্ট্র্যাটোস্ফিয়ার বেলুন আমাদের থেকে ২০ কিলোমিটার ওপরে রয়েছে, এবং সেগুলো ভূমিতে থাকা বাধা বিপত্তির থেকে অনেক ওপরে।” এই প্রকল্পের মাধ্যমে ৪০ হাজার বর্গ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছে অ্যালফাবেট, যা সুইজারল্যান্ডের সমান। চলতি বছর বন্যায় পেরুর সাত লাখ বাসিন্দা ঘর ছাড়া হয়েছেন। আর ৯৪ জন এতে প্রাণ হারান।