ইসরায়েলে টানা রকেট-ক্ষেপণাস্ত্র হামলা লেবানন থেকে

59

শনিবার ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভাষা, ধর্ম এবং সুরক্ষিত বেড়ায় বিভক্ত হওয়া সত্ত্বেও ইসরায়েল-লেবানন সীমান্তের উভয়পাশের বাসিন্দারা ব্যাপক অস্থিতিশীলতার মুখোমুখি হয়েছেন। সীমান্ত এলাকায় ক্রমবর্ধমান সহিংসতার কারণে উভয়পাশের হাজার হাজার বেসামরিক নাগরিক তাদের বাড়িঘর ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় খুঁজতে বাধ্য হয়েছেন।

হামাস নিয়ন্ত্রিত ইসরায়েলের দক্ষিণে অবস্থিত গাজা উপত্যকার চারপাশে দুই সপ্তাহ আগে যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর থেকে সীমান্তে ইসরায়েলি সেনাবাহিনী এবং লেবাননের হিজবুল্লাহর যোদ্ধাদের মাঝে টানা সংঘর্ষ চলছে। এখন পর্যন্ত সীমান্তের পার্শ্ববর্তী কিছু এলাকায় হামলা-পাল্টা হামলা সীমিত থাকলেও শিগগিরই তা বিস্তৃত রূপ ধারণ করতে পারে বলে আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

উত্তর ইসরায়েলে লেবানন থেকে প্রতিনিয়ত রকেট, ক্ষেপণাস্ত্র ও গোলাবর্ষণ করা হচ্ছে। ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর সদস্যরা পাল্টা হামলা চালিয়ে এর জবাব দিচ্ছে। স্থানীয় সময় শনিবার বিকেলের দিকে উত্তর ইসরায়েলের মারগালিওট এলাকায় লেবানন থেকে ট্যাংক-বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়া হয়েছে বলে জানিয়েছে আইডিএফ।

গত ৭ অক্টোবর অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকার ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী হামাস ইসরায়েলের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করে। দুই সপ্তাহ ধরে চলমান এই যুদ্ধে ইসরায়েলের হামলায় এখন পর্যন্ত ৪ হাজার ৩৮৫ ফিলিস্তিনি নিহত ও আরও ১৩ হাজার ৫৬১ জন আহত হয়েছেন। আর হামাসের হামলায় ইসরায়েলে প্রাণহানির সংখ্যা ১ হাজার ৪০০ জনে পৌঁছেছে। এছাড়া এই যুদ্ধে ইসরায়েলের ৩০৭ সৈন্য নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে আইডিএফ।

যুদ্ধ শুরুর পর থেকেই ফিলিস্তিনিদের সমর্থনে ইসরায়েলের উত্তরাঞ্চলে প্রত্যেকদিন হামলা চালিয়ে আসছে ইরান-সমর্থিত লেবাননের সশস্ত্রগোষ্ঠী হিজবুল্লাহ। ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর সাথে সংঘাতে গত দুই সপ্তাহে হিজবুল্লাহর অন্তত ১৩ সদস্য নিহত হয়েছেন। হামাসের সাথে ইসরায়েলের যুদ্ধে হিজবুল্লাহ যোগ দিলে তা ইসরায়েলের উত্তরাঞ্চলে যুদ্ধের নতুন ক্ষেত্র তৈরি করতে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছেন প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা।